নির্বাচিত পোস্টসমূহ
Home » ঈমানের পরীক্ষা » খালিদ বিন ওয়ালিদ (রা:) এর বীরত্ব

খালিদ বিন ওয়ালিদ (রা:) এর বীরত্ব

মৃত্যুর কিছুদিন পূর্বে, খালিদ বিন ওয়ালিদ (রাঃ) এর সাথে এক পুরোনো বন্ধু দেখা করতে আসেন। বন্ধুটি তার শয্যার পাশে বসেন।

খালিদ (রাঃ): “তুমি কি আমার পায়ে এমন এক বিঘত পরিমাণ কোন খালি জায়গা দেখতে পাচ্ছ, যেখানে কোন তরবারি, তীর বা বর্শার আঘাত নেই?”

বন্ধুটি খালিদ (রাঃ) এর পা টি পরীক্ষা করে বললেন, “না।”

খালিদ (রাঃ) প্রথমে তাঁর ডান হাত ও পরে বাম হাত উঠিয়ে দেখিয়ে তাকে অনুরূপ পরীক্ষা করতে বললেন।
বন্ধুটি একই ফলাফল বললেন।

এরপর খালিদ (রাঃ) তাঁর প্রশস্ত বক্ষ উন্মুক্ত করে তাঁর বন্ধুকে একইভাবে জিজ্ঞেস করলেন। বন্ধুটি আবারো সেই একই দৃশ্য দেখলেন যা প্রথমবার পায়ের ক্ষেত্রে দেখেছিলেন।

খালিদ (রাঃ): “তুমি কি দেখনি? আমি শহীদের আকাঙ্ক্ষা নিয়ে শত শত যুদ্ধ করেছি, কেন আমি যুদ্ধে শহীদ হলাম না?”

বন্ধুঃ “তোমার এটা বুঝতে হবে, হে খালিদ! আল্লাহর রাসূল(সাঃ) তোমার নাম রেখেছেন ‘সাইফুল্লাহ’ অর্থাত্ ‘আল্লাহর তরবারি’, তিনি এটা আগেই নির্ধারণ করে গেছেন যে তুমি কোন যুদ্ধে পরাজিত হবে না। কারণ, তুমি যদি পরাজিত হতে তাহলে এটা বুঝাতো যে আল্লাহর তরবারি কাফিরদের আঘাতে ভেঙ্গে গেছে, আর যা কখনো ঘটবে না।”

খালিদ (রাঃ): “এখন আমি এখানে উটের মত বিছানায় মারা যাচ্ছি, খুবই লজ্জার বিষয়। কাপুরুষের দু’চোখ যেন ঘুমেও বিশ্রাম না নেয়।”

(ইবনে কুতাইবাহ, পৃঃ ২৬৭; খালিদ ইবনে আল-ওয়ালিদঃ পৃ ৪৪২)

Did you like this? Share it:

About কিতাবুল ইলম

রাসুল সাঃ বলছেন, "প্রচার কর, যদিও তা একটি মাত্র আয়াত হয়" সেই প্রচারের লক্ষে আমরা। 'আপনিও হোন ইসলামের প্রচারক' প্রবন্ধের লেখা অপরিবর্তন রেখে এবং উৎস উল্লেখ্য করে আপনি Facebook, Twitter, ব্লগ, আপনার বন্ধুদের Email Address সহ অন্য Social Networking ওয়েবসাইটে শেয়ার করতে পারেন, মানবতার মুক্তির লক্ষ্যে ইসলামের আলো ছড়িয়ে দিন। "কেউ হেদায়েতের দিকে আহবান করলে যতজন তার অনুসরণ করবে প্রত্যেকের সমান সওয়াবের অধিকারী সে হবে, তবে যারা অনুসরণ করেছে তাদের সওয়াবে কোন কমতি হবেনা" [সহীহ্ মুসলিম: ২৬৭৪]

Leave a Reply